হবিগঞ্জ সদর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সেবুলের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শেখ সেবুল আহমদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের মামলা হয়েছে। সেবুল আহমদের তৃতীয় স্ত্রী দাবিদার রুবিনা আক্তার বৃহস্পতিবার হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করেন। বিচারক অভিযোগটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য চুনারুঘাট উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার অভিযোগে বলা হয়- ২০১০ সালের ১৭ জুন সেবুল আহমদ চুনারুঘাট উপজেলার গাতাবলা গ্রামের মৃত জহুর আলী কন্যা রুবিনাকে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে করেন। ওই সময় তিনি তার পূর্বের দুই স্ত্রী ও সন্তানদের কথা গোপন রাখেন। রুবিনার রয়েছে এক কন্যা সন্তান। বর্তমানে শিশুটির বয়স ৬ বছর। এদিকে সন্তান জন্মের পর সেবুল ঠিকাদারি ব্যাবসার জন্য তিন লাখ টাকা যৌতুকের জন্য রুবিনাকে চাপ দেয়। টাকা দিতে রাজী না হওয়ায় সেবুল স্ত্রী রুবিনাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। নির্যাতন থেকে বাঁচার জন্য রুবিনা তার প্রবাসী ভাই ইব্রাহিম খলিলের নিকট থেকে ২ লাখ টাকা এনে দেন। কিছুদিন যেতে না যেতেই সেবুল পুনরায় আরো ৩ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। ওই টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় গত ৮ আগস্ট বিকেলে সেবুল স্ত্রী রুবিনাকে মারপিট করেন। পরে শিশু সন্তানসহ বাড়ি থেকে বের করে দেন রুবিনাকে। আহত রুবিনা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ব্যাপারে গতকাল রাতে রুবিনার আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোঃ জহিরুল আলম তুহিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য চুনারুঘাট উপজেলা মহিলা কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। তদন্ত সাক্ষেপে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
-