নিঁেখাজ হওয়া কলেজ ছাত্রী নওরিনকে তিনদিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ-
জুয়েল চৌধুরী ॥ হবিগঞ্জ শহর থেকে নিঁেখাজ হওয়া সরকারি বৃন্দাবন কলেজ ছাত্রী তামান্না আক্তার নওরিন (২০) কে তিনদিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে সে নিঁেখাজ হয়নি, স্বেচ্ছায় প্রেমিকের সাথে অজানার উদ্দেশ্যে পালিয়ে গিয়েছিল বলে পুলিশকে জানায়।  সূত্র জানায়, মাধবপুর উপজেলার ৬নং শাহজাহানপুর ইউনিয়নের এখতিয়ারপুর গ্রামের আব্দুল আওয়ালের কন্যা তামান্না আক্তার নওরিন (২০) হবিগঞ্জ শহরের মোহনপুর এলাকার একটি ছাত্রী নিবাসে থেকে সরকারি বৃন্দাবন কলেজে পড়ালেখা করতো। সে ওই কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্রী।
২০১০ সালে তার সাথে রং নম্বরে পরিচয় হয় একই উপজেলার মনতলা দুলর্ভপুর গ্রামের আব্দুস সহিদের পুত্র শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আব্দুল মতিনের (২৫)। এক পর্যায়ে তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।
দিনে দিনে তারা তাদের সম্পকর্কে গভীরে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ঘর বাঁধার জন্য বিভোর হয়ে উঠে। গত ৯ আগষ্ট দুজন একে অপরের সাথে অজানার উদ্দেশ্যে পালিয়ে যায়।
গত ১০ আগস্ট ওই ছাত্রীর পিতা আব্দুল আওয়াল সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। জিডির প্রেক্ষিতে সদর থানার এসআই রুহুল আমিন হাওলাদার কললিষ্টের সূত্রধরে নিশ্চিত হন ওই ছাত্রী সুনামগঞ্জে আছে। এর প্রেক্ষিতে তার সহপাঠীদের চাপ সৃষ্টি করলে গতকাল শনিবার সকালে ওই ছাত্রী মোহনপুর তার ছাত্রীনিবাসে চলে আসে। এরপর পুলিশ তাকে সেখান থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তখন জিজ্ঞাসাবাদকালে পুলিশকে এ তথ্য জানায় ছাত্রী নওরিন।
পুলিশ আরো জানায়, তারা সুনামগঞ্জ শহরের হোটেল ফেমার্সের ৩ তলায় ৩ দিন অবস্থান করছিল।

-