প্রশাসনের পক্ষ থেকে গোপিনাথপুরের পুকুরটি দখলমুক্ত করার আশ্বাস-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের চিড়াকান্দি গোপিনাথপুর এলাকায় পৌরসভার শত বছরের পুরাতন পুকুর পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম আজহারুল ইসলাম। পরিদর্শনকালে তিনি পুকুরের আশপাশের মানুষের সাথে কথা বলেন এবং পুকুরটি দখলমুক্ত করার আশ্বাস দেন। পরিদর্শনকালে তাঁর সাথে ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ ওবায়দুল বাশার। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জ জেলা সভাপতি প্রাক্তন অধ্যক্ষ ইকরামুল ওয়াদুদ, সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন সোহেল, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তদন্ত সংস্থা কর্তৃক গঠিত হবিগঞ্জ জেলা সাক্ষী ও ভিকটিম সুরক্ষা কমিটির মেম্বার ও বিশিষ্ট সাংবাদিক রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী মমিন, অ্যাডভোকেট বিজন বিহারী দাশ, এলাকার বিশিষ্ট মুরুব্বী সমুজ মিয়া, রবি দেব, কোখা সূত্রধর, রামেস্বর পাল মন্টু, নায়েব আলী, কাজল পাল, উত্তম রায়, পিনাকী রায়, সঞ্জয় রায়, শুকেশ পাল, সুমন পাল, পুকুর রক্ষা কমিটির সমন্বয়কারী আব্দুল রকিব রনি, বিপ্লব রায় সুজন, ইমন পাল, মিজানুর রহমান মিজান, সমাজকর্মী কৌশিক আচার্য্য পায়েল, এসডি আর পিনাক, রাহি রায়, নয়ন রায়, দীপায়ন দীপ্ত, সহ এলাকাবাসী।
উল্লেখ্য, হবিগঞ্জ পৌরসভার ৬০ শতক জায়গায় ঐতিহ্যবাহী ওই পুকুরটি এক সময় এলাকাবাসী দৈনন্দিন কাজে ব্যবহার করতেন। পুকুরটিতে প্রতিদিন শত শত লোক গোসল করতেন। কয়েক বছর পূর্বে ওই এলাকার আব্দুস সালাম নামে এক ব্যক্তি লিজ নিয়ে পুকুর নানা কৌশলে দখল করে রেখেছেন। এছাড়া পাড়ে ময়লা আবর্জনার স্তুপ সৃষ্টি হয়ে এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট হয়েছে। পুকুরটি দখলমুক্ত করার জন্য এলাকাবাসী আন্দোলনে নেমেছেন। এলাকাবাসীর সাথে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপাসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ঐক্যমত প্রকাশ করে আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমা বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম আজহারুল ইসলামকে পুকুরটি নির্দেশ দেন। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ইউএনও পুকুরটি পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে তিনি পুকুরটি দখলমুক্ত করার আশ্বাস দেন।

-
প্রথম পাতা