জাল দলিল মামলায় কারাভোগ করায় তহশিলদার আবিদ সাময়িক বরখাস্ত-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ আলোচিত ৩ খানা কোরআন শরিফের বদৌলতে ১ কোটি টাকার জমি আত্মসাত ঘটনার সাথে জড়িত নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের তহশিলদার বাহুবল উপজেলার জয়পুর গ্রামের বাসিন্দা আবিদ আলীকে অবশেষে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। জাল দলিল মামলায় (সিআর ২৫/১৭ বাহুবল) তহসিলদার আবিদ আলীকে গত ১৬ আগস্ট জেলহাজতে প্রেরণ করেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সম্পা জাহান। সরকারি কর্মচারি হয়ে জেলহাজত ভোগের বিষয়টি গোপন করে রেখেছিলেন আবিদ আলী। নিজের জেলহাজত ভোগের বিষয়টি ধামাচাপা দিতে দৌড়ঝাপ শুরু করেন তিনি। গত ১ নভেম্বর নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ১২০৭ নং স্মারকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়কে অবহিত করেন যে, নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আবিদ আলী সিআর ২৫/১৭ নং মামলায় গত ১৬ আগস্ট থেকে ২৯ আগস্ট পর্যন্ত জেলহাজত ভোগ করেন। নবীগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অবহিতকরণ পত্র পেয়ে জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমা গত ৩০ নভেম্বর বিএসআর পার্ট-১ এর ৭৩(২) নং বিধি মোতাবেক তহশিলদার আবিদ আলীকে গত ১৬ আগস্ট জেলহাজত ভোগের তারিখ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন।
জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে দলিল সৃষ্টি, প্রতারণা, সরকারি চাকুরিজীবী হওয়া স্বত্বেও উৎকোচ গ্রহনের অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে স্পেশাল জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন জমির মালিক সৈয়দ আমিনা বেগমের পুত্র মোঃ আব্দুল আজিজ চৌধুরী। প্রায় ২৩ বছর আগে রেজিস্ট্রি দলিল সম্পাদন হওয়া কোটি টাকার জায়গা আত্মসাতের চেষ্টা করে আসামীরা। এ জন্য তারা ভিন্ন ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে।

-