বানিয়াচঙ্গে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে পুত্রকে ত্যাজ্য করলেন পিতা-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচঙ্গে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে কুলাঙ্গার পুত্রকে ত্যাজ্য করলেন এক হতভাগ্য পিতা। ৮ এপ্রিল নোটারী পাবলিকের কার্যালয় হবিগঞ্জে এফিডেভিট করে তিনি তার পুত্রকে ত্যাজ্য করেন। এফিডেভিটে বানিয়াচঙ্গ ৪নং দক্ষিণ পশ্চিম ইউনিয়নের যাত্রাপাশা গ্রামের মৃত মৌলা বক্সের পুত্র জরিফ উল্লাহ উল্লেখ করেন তিনি একজন বৃদ্ধ মানুষ। তার ঔরসজাত ২য় ছেলে শরিফ উল্লাহ অত্যন্ত বেপরোয়া, উশৃঙ্খল ও সম্পূর্ণ তার অবাধ্য। তার আরো ছেলে মেয়ে থাকার পরও শরিফ উল্লাহ তার নামে সকল সম্পত্তি লিখে দেয়ার জন্য তাকে নানা ভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছে। তাকে সুপথে আনার চেষ্টা করেও তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। তার নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে কিছুদিন পূর্বে তিনি জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট-২ আদালতে ১০৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন। এর পর সে ভবিষ্যতে তার সাথে কোন রকম খারাপ আচরণ করবে না মর্মে অঙ্গীকার করে। কিন্তু এর পরও শরিফ উল্লাহ সংশোধন না হয়ে পুনরায় তাকে শারীরিকভাবে মারপিট করে। এমতাবস্থায় হতভাগ্য পিতা জরিফ উল্লাহ বাধ্য হয়ে পুত্রের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (কগ-৪) আদালতে মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে বিচারাধিন রয়েছে। বর্তমানে শরিফ উল্লাহর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে জরিফ উল্লাহ আত্মীয়-স্বজনের সাথে পরামর্শ করে তার নিজের নিরাপত্তা, সম্পত্তি রক্ষা এবং অন্য ছেলে মেয়েদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে গত ৮ এপ্রিল নোটারী পাবলিকের কার্যালয় হবিগঞ্জে এফিডেভিট করে তিনি শরিফ উল্লাহকে ত্যাজ্য করেন। এখন থেকে সে আর তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে কোন দাবি করতে পারবে না। এ ছাড়া কেউ তার সাথে কোন প্রকার লেনদেন করলে তা নিজ দায়িত্বে করার অনুরোধ জানিয়েছেন জরিফ উল্লাহ।

-