বানিয়াচংয়ে অর্ধলাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’-
শিশুর সুস্থভাবে বেঁচে থাকা, স্বাভাবিক বুদ্ধি ও দৃষ্টিশক্তির জন্য ভিটামিন ‘এ’ গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন ‘এ’ চোখের স্বাভাবিক দৃষ্টিশক্তি ও শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধি বজায় রাখে
তোফায়েল রেজা সোহেল, বানিয়াচং থেকে ॥ সারা দেশের ন্যায় আগামী ১৪ জুলাই বানিয়াচং উপজেলায় প্রায় অর্ধলাখ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৩৫৫ টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৫ হাজার ৬৩০ জন স্বেচ্ছাসেবক ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল শিশুদের খাওয়াবেন। ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৪৩ হাজার ৭০৮ জন শিশুকে লাল রঙের ও ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৫ হাজার ৫৩০ জন শিশুকে আইইউ ক্ষমতাসম্পন্ন নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাসসুল খাওয়ানো হবে।
এসব কার্যক্রম তদারকি করবেন ৪৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী ও ৪৫ জন সুপারভাইজারসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তাগণ। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিভাগের পক্ষ থেকে হাওরাঞ্চলে নৌকা ও সড়ক পথে সিএনজি দিয়ে মাইকিং করা হবে। শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসহ সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। কর্মসূচি সফল করতে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভার আয়োজন করে কর্তৃপক্ষ।
টিএইচও ডা. আবুল হাদী মো.শাহ পরানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ভারপ্রাপ্ত ইউএনও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাব্বির আহমেদ আকুঞ্জী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তানিয়া খানম, বানিয়াচং সদর দক্ষিণ-পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, প্রেসক্লাব সেক্রেটারি তোফায়েল রেজা সোহেল।    
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, শিশুর সুস্থভাবে বেঁচে থাকা, স্বাভাবিক বুদ্ধি ও দৃষ্টিশক্তির জন্য ভিটামিন ‘এ’ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এক অনুপুষ্টি। ভিটামিন ‘এ’ চোখের স্বাভাবিক দৃষ্টিশক্তি ও শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধি বজায় রাখে। বিভিন্ন রোগের প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করে। ভিটামিন ‘এ’ এর অভাবে রাতকানাসহ চোখের অন্যান্য রোগ, শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হওয়া, রক্তশূন্যতা এবং শিশু মৃত্যুরও কারণ হতে পারে।

-