ভোট সেন্টারে কোন অপকর্মের চেষ্টা করা হলে মানব প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে-
শহরের ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সভায় জি কে গউছ
স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ-৩ (সদর, লাখাই ও শায়েস্তাগঞ্জ) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এবং বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জি কে গউছ বলেছেন- ভোট সেন্টারে কোন অপকর্ম করার চেষ্টা করা হলে মানব প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। স্বত:স্ফুর্ত ভোটারের সামনে কোন অপশক্তি দাঁড়াতে পারবে না। মানুষ ভোট দিতে চায়, পরিবর্তন চায়, আওয়ামী লীগ সরকারের গত ১০ বছরের অপকর্মের জবাব দিতে চায়। তিনি বুধবার হবিগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।
জি কে গউছ বলেন- হবিগঞ্জে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠভাবে করতে হলে প্রশাসনকে নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সকল রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনী মাঠে কাজ করার সুযোগ করে দিতে হবে। ভোটারদের আস্থা অর্জনে নির্বাচন কমিশনকে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করতে হবে। কোনো পাতানো নির্বাচন বাংলাদেশের মানুষ গ্রহণ করবে না। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ উপেক্ষা করে লাখাই উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুদ্দিন আহমেদ ও উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক তাউছ আহমেদকে কোন মামলা ছাড়াই পুলিশ গ্রেফতার করেছে। উদ্দেশ্য একটাই, বিএনপি নেতাকর্মীদের মনোবল ভেঙ্গে দেয়া। কিন্তু তাদের জানা নেই, গ্রেফতার আর পুলিশী নির্যাতন যত বাড়বে, বিএনপি নেতাকর্মীরা আরও উজ্জীবিত হবে। গ্রেফতার করে নির্বাচনী মাঠ খালি করা যাবে না। তবে পুলিশের এমন আচরণ সুষ্ঠ নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে। আমরা প্রত্যাশা করছি, পুলিশ নিরপেক্ষভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করবে। তারা জনগণের মুখোমুখি হবে না।
জেলা বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা রফিকের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সফিকুর রহমান ফারছু, অ্যাডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন আহমেদ শাহিন প্রমূখ।
জি কে গউছ বলেন- গণতন্ত্রের মা, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। যার জীবনে কোন নির্বাচনে পরাজয় বরণ করতে হয়নি। আজকের প্রধানমন্ত্রী ৯১ সালের নির্বাচনে ২ আসনে পরাজিত হয়েছিলেন। বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা যায়, ঘুম খুন করা যায়, কিন্তু ইতিহাস বদলানো যায় না। ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করে না। আজকে ক্ষমতা পেয়ে যারা বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত তাদেরকে একদিন ইতিহাসের কাটগড়ায় দাড়াতে হবে। মহান আল্লাহ সত্যের পক্ষে, ন্যায়ের পক্ষে। কোন অপশক্তি আমাদের ক্ষতি করতে পারবে না। আমি আল্লাহর উপর ভরসা রেখে নির্বাচন করছি, ইনশাআল্লাহ আমাদের বিজয় নিশ্চিত। ভোট বিপ্লবের মধ্য দিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে।
জেলা শ্রমিকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মুহাইমীন চৌধুরী ফুয়াদ ও ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম ইসলাম তরফদার তনু, জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ হাজী এনামুল হক, জেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এস এম বজলুর রহমান, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান আউয়াল, বিশিষ্ট মুরুব্বি শাহ কমর উদ্দিন কমরু, আশিকুর রহমান চৌধুরী আশিক, বিএনপি নেতা আব্দুল হান্নান ফরিদ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম চৌধুরী ফরিদ, চৌধুরী লুৎফুর বারী হাদী জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুশফিক আহমেদ, জেলা জাসাাসের সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, সৈয়দা লাভলী সুলতানা, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আলাউদ্দিন আহমেদ, ফারুক আহমেদ, সফিকুর রহমান সিতু, শাহ সালাউদ্দিন টিটু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এমদাদুল হক ইমরান, সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমেদ চৌধুরী, কুতুব উদ্দিন শামীম, আলমপনা চৌধুরী মাসুদ, হাফিজুল ইসলাম, লালন আহমেদ, কাওছার আহমেদ জাকির, আব্দুল বারিক লিটন, শাহ আব্দুল কাদির, তারেক তরফদার, আব্দুস সালাম শামীম, খাইরুল আলম এনাম, এহসানুল হক সুমন, আরিফুর রহমান চৌধুরী, ইসলাম উদ্দিন প্রমুখ।

-
প্রথম পাতা