বিএনপি’র সন্ত্রাস এবং আওয়ামী লীগের উন্নয়নের কথা মনে রেখেছে জনগণ-
আরটিভি’র গোলটেবিল অনুষ্ঠানে এমপি আবু জাহির
স্টাফ রিপোর্টার ॥ আরটিভি’র নিয়মিত অনুষ্ঠান ‘গোলটেবিল’ গতরাত ১১টা ২০ মিনিটে অনুষ্ঠিত হয়। বিষয় ছিল রাজনীতির ভবিষ্যত। এতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অংশ নেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও টানা তিন বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির।
অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের অধীনে প্রায় ৬ হাজার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সবগুলো নির্বাচন নিরপেক্ষ হওয়ায় এগুলোতে বিএনপি’র প্রার্থীরাও বিজয়ী হয়। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনটিও ছিল অত্যন্ত উৎসবমুখর। এর আমেজ ছিল সারাদেশ জুড়ে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রধানরা বাংলাদেশের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। নির্বাচনের পর আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরাও এই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন। বিএনপির জনপ্রিয়তা না থাকায় তারা নির্বাচিত হতে পারেনি।
তিনি আরো বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনে ১ হাজার ভোটের ব্যবধানেও বিএনপি’র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। আওয়ামী লীগ ইচ্ছে করলেই সেখানে কারচুপি করে জয় পক্ষে নিয়ে আসতে পারতো। কিন্তু আমরা তা করিনি। হবিগঞ্জে ২০০৮, ২০১৪ এবং এবার অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তার উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন নির্বাচনে বিএনপি’র জয় হয়েছে, আবার পরাজয়ও হয়েছে। নির্বাচিত না হতে পারলেই তারা মিথ্যা অভিযোগ করে। অতীতে বিএনপি’র আগুন সন্ত্রাসের কথা জনগণ ভুলে যায়নি। আর আওয়ামী লীগের উন্নয়নের কথাও দেশবাসী মনে রেখেছেন। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতেই জনগণ নৌকায় ভোট দিয়েছে।
তিনি বলেন, দেশ এগিয়ে যাওয়ার স্বার্থে নতুন প্রজন্মের ভোটাররা আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়েছে। এছাড়া বেগম খালেদা জিয়ার এতিমের টাকা আত্মসাতসহ বিভিন্ন দুর্নীতির কারণে বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন নারী ভোটাররা। বিএনপি নেত্রীর দুই ছেলে দুর্নীতির মাধ্যমে সম্পদ বানিয়েছে। এখনও তারা ঋণ খেলাপীর মামলা মাথায় নিয়ে ঘুরছে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের ফলাফলও খালেদা জিয়া মেনে নেননি। বিএনপি’র পরাজয় হলেই তারা সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হয়নি বলে অভিযোগ করেন।
রোবায়েত হোসেনের সঞ্চালনায় রাজনীতির ভবিষ্যতে শিরোনামে গোলটেবিল অনুষ্ঠানে অংশ নেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম অহিদুজ্জামান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোঃ আখতার হোসেন খান, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিল, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার ও বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ফাহিমা নাসরিন মুন্নী।

-