বানিয়াচংয়ে মিনারা হত্যা মামলা আপোষ না করায় স্বামী ও ভাতিজার স্ত্রীকে কুপিয়ে আহত-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং উপজেলার কাটখাল গ্রামে চাঞ্চল্যকর ৬ সন্তানের জননী ও প্রবাসীর স্ত্রী মিনারা খাতুনকে টেটাবিদ্ধ করে খুনের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা আপোষ না করায় তার স্বামী ও ভাতিজার স্ত্রীকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেছে আসামীরা। মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, চাঞ্চল্যকর মিনারা হত্যার বেশ কয়েকজন আসামী জামিনে এসেছে। জামিনে বেরিয়ে আসামীরা মামলা আপোষ করার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে আসছে। এ ব্যাপারে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে মামলার বাদী ও নিহত মিনারার পুত্র হাফেজ সাইফুর রহমান মঙ্গলবার বিকেলে বানিয়াচং থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে। যার নং ৯৮২। এই জিডি দায়ের করার পর আসামীরা মঙ্গলবার রাতে হামলা চালিয়ে মিনারার বিদেশ ফেরত স্বামী আব্দুর রহিম এবং তার ভাতিজা মাসুম মিয়ার স্ত্রী রাহেলা বেগমকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করায়। বানিয়াচং থানার ওসি রাশেদ মোবারক জানান, এ ব্যাপারে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। এখন পর্যন্ত হামলার কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রসঙ্গত- কাটখাল গ্রামের পাতনী বাড়ি ও চৌকিদার বাড়ির লোকদের সাথে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল একই গ্রামের কাছুম আলী এবং তার লোকজনের। এ নিয়ে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গত ৩ নভেম্বর এই বিরোধকে কেন্দ্র করে মিনারা খাতুনের বুকে টেটাবিদ্ধ করে পাতনী বাড়ির লোকজন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে তার মৃত্যু হয়। পরে নিহত মিনারের ছেলে হাফেজ সাইফুর রহমান বাদী হয়ে ৫১ জনকে আসামী করে বানিয়াচং থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। প্রথমে বানিয়াচং থানা পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব গ্রহণ করলেও পরে সেটি পিবিআইতে স্থানান্তর করা হয়।

-