হবিগঞ্জ শহরের খোয়াই পাড়ে দ্বিতল ভবনসহ ১১২টি অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে-
স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ শহরে খোয়াই নদীর তীরের সকল অবৈধ ও অননোমোদিত স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। গতকাল শনিবার দিনভর শহরের উত্তর দিকের মধ্য বেইলী ব্রীজ থেকে নোয়াবাদের সুলতান মামদপুর মৌজার সীমানা পর্যন্ত নদীর পাড়ের সকল অবৈধ অননোমোদিত স্থাপনা ও বৃক্ষ-রাজি এক্সেভেটর দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়।
সরেজমিনে দেখা যায়, হবিগঞ্জ শহরের খোয়াই’র মধ্য বেইলী ব্রীজের নদীর উজানের সকল অবৈধ স্থাপনা, দেয়াল, শৌচাগার, একতল, দ্বিতল ভবনসহ ১১২টি অবকাঠামো এক্সকেভেটর দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়। হবিগঞ্জ সদরের ইউ.এন.ও’র নাজির আলমগীর ফারুকী চৌধুরীর বরাত দিয়ে ফ্রি ল্যান্স সাংবাদিক মোহাম্মদ আলী মমিন জানান- সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সাখাওয়াত হোসেন রুবেল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মাসুদ রানা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসডিই এমএল সৈকত, সদর থানার এস.আই আব্দুর রহিম সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীরা কৌশলী নীতি অবলম্বন করে উচ্ছেদ ও অপসারণ কার্যক্রম নির্বিঘেœ সুসস্পন্ন করেছেন।
হবিগঞ্জ শহরবাসী ঢাকার বুড়িগঙ্গা, তুরাগ নদীর সফল উচ্ছেদ অভিযানের দৃশ্য প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়া ফেসবুক ইউটিউবে দর্শন করলেও বাস্তবে অনুরূপ উচ্ছেদ অভিযান খোয়াই পাড়ে প্রত্যক্ষ করছে। অভিযানকালে অবৈধ স্থাপনা আংশিক রক্ষা বা কালক্ষেপনে প্রভাবশালীদের তদবির অনুনয় বিনয় ধন্যবাদের সহিত প্রত্যাখ্যানের শব্দও শোনা গেছে।

-