চুনারুঘাটে করোনা পরীক্ষায় অনীহা-


চুনারুঘাট প্রতিনিধি ॥ চুনারুঘাটে এখন আর করোনা পরীক্ষার জন্য পাওয়া যাচ্ছে না নমুনা। পুর্বে যেখানে প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০ জন করোনা নমুনা পরীক্ষা করাতেন, এখন দিনে ২/৩ জনও আসছেন না। গত দু’দিনে কেউ আসেননি হাসপাতালে নমুনা দিতে। অথচ চলতি মাসের ৯ জুলাই পর্যন্ত চুনারুঘাট উপজেলা ছিল রেডজোনে। বর্তমানে আইসোলেশনে রোগী রয়েছে মাত্র ১০ জন। উপজেলায় এখন পর্যন্ত ১৬৬ জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৫৫ জন। একজন রোগী মারা গেছে। এছাড়া গত দু’দিন আগে সিলেট চুনারুঘাটের সতং বাজার এলাকার অব্দুল আহাদ নামে আরও এক রোগী মারা গেছেন।
এপ্রিলের দিকে চুনারুঘাটে করোনার সংক্রমন মারাত্মক হারে বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে চুনারুঘাট উপজেলা চলে আসে রেডজোনের আওতায়। প্রশাসন লকডাউন ঘোষনা করে। চলতি মাসের ৯ জুলাই পর্যন্ত এ লকডাউন চলমান ছিল। এরই মধ্যে কমে আসে করোনার সংক্রমন। এখন বলতে গেলে রোগীই নেই। এদিকে বর্তমানে চুনারুঘাটের হাট বাজার কিংবা কোথাও কোন স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। হাট বাজারে কিংবা অফিসে আসা মানুষের মুখে নেই মাস্ক কিংবা হাতে নেই গ্লাভস। নেই কোন সামাজিক দুরত্ব। সরকারের নানা পদক্ষেপ চুনারুঘাটে পালনের কোন দেখা মিলে না। তারপরও চুনারুঘাটে এখন যেন করোনা রোগী নেই, নেই কোন নমুনা পরীক্ষা।
উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোজাম্মেল হোসেন জানান, চুনারুঘাটে এখন দৈনিক ৪/৫ জন নমুনা পরীক্ষা দিতে আসেন। গত কয়েকদিন ধরে কোন করোনা রোগী আমরা পাচ্ছি না। ইতোমধ্যে ১৫৫ জন রোগী সুস্থ্য হয়েছে এবং আমরা তাদের ছাড়পত্র দিয়েছি। বর্তমানে মাত্র ১০ জন আছেন আইসোলেশনে। তিনি জানান, উপজেলায় এ পর্যন্ত ১ হাজার ১শ ৬০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৬ জন ছাড়া বাকী সকলের রিপোর্ট এসেছে। তাদের মধ্যে আক্রান্ত ছিল ১৬৬ জন, সুস্থ্য হয়েছে ১৫৫ জনই। তিনজন মারা গেছে এবং চিকিৎসাধীন আছে ১০ জন।  

-